রমজানের প্রথম দিনই অপরুপ চাঁদ দেখলো দেশবাসী

0

২৪ মার্চ ২০২৩ ইং চাঁদ এবং শুক্র গ্রহ

আজ সন্ধ্যায় পশ্চিম আকাশে দুদিন বয়সের চাঁদ ও তার নিচে একটা তারা অনেকেই দেখেছেন। এটা তারা নয়, খালি চোখে দৃশ্যমান সবচেয়ে উজ্জ্বল গ্রহ। মানে শুক্র গ্রহ বা Venus, সন্ধ্যায় যার নাম সন্ধ্যা তারা। শুক্র আসলে চাঁদের পেছনে ঢাকা পড়েছিল এবং যখন দেখতে পেয়েছেন, মাগরিবের সময়, তখন সে বেরিয়ে আসছে। চাঁদ দিয়ে শুক্রের গ্রহণ! চাঁদ, শুক্র ও পৃথিবী কক্ষপথে একই সরলরেখায় এসেছিল আজ। জ্যোতির্বিদ্যায় যা syzygy নামে পরিচিত। চাঁদের সাথে গ্রহদের একই রেখায় আসা বিরল ঘটনা নয়। তবে শুক্রের উজ্জ্বলতা বেশি বলে সহজেই নজরে এসেছে।

চাঁদ – শুক্র কনজাংকশনঃ

চাঁদ

কাছে তবু কাছে নয় ছোটোকাল থেকেই আমরা জানি, সূর্যের চারপাশে পৃথিবীসহ আবর্তন করছে সৌরজগতের আরো ৭ টি গ্রহও। এদের সবাই ই প্রায় বৃত্তাকার পথে পরিভ্রমণ করছে। এই ‘বৃত্তাকার’ ধরণের কক্ষপথের কারণেই কখনো দুটি গ্রহ পৃথিবীর স্বাপেক্ষে এমনভাবে অবস্হা

ন করে যে তাদেরকে পাশাপাশি দুটি বিন্দুর ন্যায় দেখায়। জ্যোতির্বিদ্যায় এ ঘটনাকে বলে কনজাংকশন বা, সংযোগ। হতে পারে তা পৃথিবীর স্বাপেক্ষে দুটি গ্রহের বা, হতে পারে চাঁদের সাথে কোনো গ্রহের। কল্পনা করুন, তিনটি রাস্তা, যেগুলো গোল বা, বৃত্তাকার। আপনি এর মধ্যে সবচেয়ে ভেতরের রাস্তায় গাড়ি চালাচ্ছেন। আপনার পাশে বাইরের দুটি রাস্তায়ও দুটি গাড়ি চলছে। সব গাড়ির গতি একই নয়। কম বেশি। তাই এমতাবস্হায় একটি নির্দিষ্ট সময় পর পর এমন একটি অবস্হার সৃষ্টি হবে, যখন আপনার গাড়ি পাশের দুটি গাড়িকে ওটারট্রেক বা, পাস করবে এবং সেক্ষেত্রে আপনার গাড়ি থেকে সে গাড়ি দুটির দিকে সোজা তাকালে তাদের খুব কাছাকাছি বা, পাশাপাশি থাকতে দেখাবে। কনজাংকশনও সেইম একই ঘটনা। আজকের আকাশেও দেখা গিয়েছিল এমন এক ঘটনা। চাঁদের ঠিক নিচেই দেখা গিয়েছিল শুক্র গ্রহকে। দেখে মনে হয়েছিল শুক্র যেন চাঁদের খুব কাছেই। কিন্তু না। এ সময় শুক্রের দূরত্ব পৃথিবী হতে ছিল প্রায় ১৮ কোটি কি.মি. ও চাঁদ মাত্র প্রায় পৌনে ৪ লক্ষ কি.মি.। অর্থ্যাৎ, এ সময় চাঁদ হতে শুক্রের দূরত্ব ছিল প্রায় ১৮ কোটি কি.মি.। চাঁদ আকারে শুক্রের তুলনায় প্রায় সাড়ে তিন ভাগের ১ ভাগ। কিন্তু তা শুক্রের তুলনায় প্রায় ৪৮০ গুণ নিকটে। তাই চাঁদকে এতো বড়ো দেখায়।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *